Main menu

Author archives: বাছবিচার

এডিটর, বাছবিচার।

বাংলাদেশে শ্রেণী সংগঠনের ইতিহাস – আবদুল হামিদ খান ভাসানী

সাপ্তাহিক ‘হক-কথা’ পত্রিকার ৮ নাম্বার সংখ্যায়, ১৯৭২ সালের ১৬ই এপ্রিল আবদুল হামিদ খান ভাসানীর এই লেখাটা ছাপা হয়। উনি এই পত্রিকার প্রকাশক ছিলেন, এডিটর ছিলেন ইরফানুল বারী; পরে ৩০শে এপ্রিল তারিখে এডিটর’রে অই সময়ের আওয়ামী সরকার গ্রেফতার করলে উনি নিজে ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক…

আঞ্চলিক ভাষার অভিধান: সৈয়দ আলী আহসান ও মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্‌র ভাষা প্ল্যানিং

১৯৬৪ সালে বাংলা একাডেমি থিকা “আঞ্চলিক ভাষার অভিধান” ছাপা হয়। তখন বাংলা একাডেমির পরিচালক আছিলেন সৈয়দ আলী আহসান। আর এই ডিকশানি প্রজেক্টের প্রধান সম্পাদক আছিলেন মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্। উপদেষ্টা কমিটিতে মুহম্মদ এনামুল হক, মুহম্মদ আবদুল হাই, মুনীর চৌধুরী ও কাজী দীন…

পূর্ব পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা ।। সৈয়দ মুজতবা আলী।। কিস্তি ২ ।।

১ ।। ………………………………… ভাষা তো পাওয়ারের লগে রিলেটেড একটা ঘটনা। ব্রিটিশ আমলে ইংলিশ যে সরকারি দফতরের ভাষা আছিল, সেইটা তো পাওয়ারের কারণেই। তো, ব্রিটিশরা যখন নাই তখন তো আরেকটা ভাষার দরকার। ইন্ডিয়া চাইলো, হিন্দি ভাষারে এস্টাবলিশ করতে, না পাইরা ইংলিশটারে…

পূর্ব পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা ।। সৈয়দ মুজতবা আলী।। কিস্তি ১ ।।

১৯৪৭ সালের ৩০ শে নভেম্বর সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা নিয়া আলাপ হয়, সৈয়দ মুজতবা আলী সেইখানে বাংলা ভাষার পক্ষে একটা লেকচার দেন। উনার এই লেকচার নিয়া অনেক তর্ক বিতর্ক হয়। সৈয়দ মুজতবা আলী তখন বগুড়ার আজিজুল হক…

“মুসলমানী বাঙ্গালা” কি? ।। আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ ।।

১৯২০/৩০ এর দিকে (আগে বা পরেও) এই তর্কগুলা খুব চলতো যে, মুসলমানরাও বাঙালি কিনা বা কেমনে তাদেরও কন্ট্রিবিউশন আছে বাংলাভাষায়। এইটা আরো জোরদার হইছিল দীনেশচন্দ্র সেনের পুরান পুঁথিগুলা আবিষ্কারের পরে। দেখা গেল, আরে, মুসলমানরাও তো বাংলাভাষায় লিখছে আগে! নতুন নতুন…

  1. ক্রিয়েটিভ আর্ট
  2. ক্রিটিকস
  3. তত্ত্ব ও দর্শন
  4. ইন্টারভিউ
  5. তর্ক
  6. অন্যান্য