Main menu

ফিকশন লেখার ৭টা ট্রিকস: বোর্হেস

১৯৬৯ সালে ছাপানো উনার ইন প্রেইজ অফ ডার্কনেস বইয়ের শুরুতে, Carlos Frias এর রেফারেন্স দিয়া Jorge Louis Borges কইতেছিলেন, উনার এডিটর  উনারে পরামর্শ দিছে, এই সুযোগে উনি যাতে উনার এসথেটিকসটা ক্লিয়ার করেন। তো, বোর্হেস কইতেছিলেন, উনার তো কোন এসথেটিকস নাই। আর লোকজন যারে এসথেটিকস কয়, সেইটাতে উনি বিলিভও করেন না। অইগুলা হইতেছে – “ইউজলেস অ্যাবসট্রাকশন্স”। এইগুলা একেকজন লেখকের কাছে একেক রকম, এমন কি একেকটা লেখাতেও একেক রকম।

বরং উনি বলতেছিলেন যে, টাইম উনারে কিছু ট্রিকস শিখাইছে। এইরকম ৭ টা ট্রিকসের কথা উনি বলছেন। ট্রিকগুলারে বাংলা করলে এইরকম দাঁড়াইতে পারে –

১. সিনোনিমস এভয়েড করা। এইটার সমস্যাটা হইলো এরা কাল্পনিক ডিফরেন্স সাজেস্ট করে।

২. হিস্পানিয়াজমস, আর্জেন্টাইনিয়াজমস, আর্কাইজমস আর নিও-লগোজমস এভয়েড করা।

৩. ঝাঁকানি-দেয়া শব্দগুলার চাইতে ডেইলি লাইফের শব্দগুলা ইউজ করা।

৪. অবস্থার ডিটেইলগুলা ইনসার্ট করা, আমার গল্পগুলার ভিতরে; যেইটা এখনকার রিডারদের একটা ডিমান্ড।

৫. একটা হালকা আন-সার্টেইনটিটি’র ভান করা, কারণ যদিও রিয়ালিটি খুব ঠিকঠাক জিনিস, মেমোরি তো তা না।

৬. ঘটনাগুলারে বলা (এইটা আমি কিপলিং আর আইসল্যান্ডের গাঁথাগুলা থিকা শিখছি), যদিও আমি তাদেরকে পুরাপুরি বুঝতে পারি না।

৭. মনে রাখা, যে ট্রাডিশন, রীতিনীতি, “নিয়মগুলা” একটা বাধ্যবাধকতা না, আর সময় অবশ্যই তাদেরকে বাতিল কইরা দিবে।

Quotation-Jorge-Luis-Borges-I-can-give-you-my-loneliness-my-darkness-the-hunger-37-47-51

 

বোর্হেস এইরকম পয়েন্ট কইরা বলেন নাই। Andrew Hurley’র করা ইংলিশ তরজমাটাও নিচে দিয়া রাখলাম –

“Carlos Frias has suggested that I take advantage of the foreword to this book to declare my æsthetics. My poverty, my will, resist that suggestion. I do not have an æsthetics. Time has taught me a few tricks – avoiding synonyms, the drawback to which is that they suggest imaginary differences; avoiding Hispanicisms, dams Argentinisms, archaisms, and neologisms; using everyday words rather than shocking ones; inserting circumstantial details, which are now demanded by readers, into my stories; feigning a slight uncertainty, since even though reality is precise, memory isn’t; narrating events (this I learned from Kipling and the Icelandic sagas) as though I didn’t fully understand them; remembering that tradition, conventions, “the rules”, are on obligation, and that time will surely repeal them — but such tricks (or habits) are most certainly not an æsthetics. Anyway, I don’t believe in those formulations that people call “an æsthetics.” As a general rule, they are no more than useless abstractions; they vary from author to author and even from text to text, and can never be more than occasional stimuli or tools.”

 

collected-fictions-of-joes-luis-borges

……………………..

আরো পড়তে পারেন:

বঙ্কিম’স এডভাইস – https://bit.ly/2XMOMod

 

শেয়ার অন::Share on Facebook0Share on Google+0Share on LinkedIn0Pin on Pinterest0Tweet about this on Twitter0Email this to someone
ইমরুল হাসান
কবি, গল্প-লেখক, ক্রিটিক এবং অনুবাদক। জন্ম, ঊনিশো পচাত্তরে। থাকেন ঢাকায়, বাংলাদেশে।
  1. ক্রিয়েটিভ আর্ট
  2. ক্রিটিকস
  3. তত্ত্ব ও দর্শন
  4. ইন্টারভিউ
  5. তর্ক
  6. অন্যান্য